Home / ফটোগ্যালারী / বইমেলা এবার আরো বিস্তৃত পরিসরে

বইমেলা এবার আরো বিস্তৃত পরিসরে

বাংলাবাজার২১ : বাংলা একাডেমির অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০২০ আরো বিস্তৃত পরিসরে আয়োজন করা হচ্ছে। বাড়ছে মেলার পরিসর ও অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা। সঙ্গে বাড়ছে প্রবেশদ্বার। নতুন করে যুক্ত হচ্ছে ফুডকোর্ট। পার্কের

আবহ, বৃক্ষ ও প্রকৃতির সঙ্গে সংযুক্তি ঘটিয়ে নতুনত্ব আনা হচ্ছে অঙ্গসজ্জায়। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এবারের মেলা হবে বঙ্গবন্ধুময়। মেলা সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে এসব কথা জানা গেছে।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বইমেলা সম্প্রসারণের পর থেকে মেলার আয়তন ক্রমশ বাড়ছে। সে ধারাবাহিকতায় এবারও বাড়ছে এর বিস্তৃতি। বাংলা একাডেমির সামনে থেকে শুরু হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিসংলগ্ন সোহরাওয়ার্দী উদ্যোনের প্রবেশ পথ পর্যন্ত হচ্ছে মেলার বিস্তৃতি। একাডেমির সামনের প্রবেশ পথের সঙ্গে টিএসসিসংলগ্ন প্রবেশপথ যুক্ত হওয়ায় এবার মেলার উদ্যান অংশের প্রবেশপথ হচ্ছে দুটি।

মেলার আয়তন এবার বেড়ে হচ্ছে সাড়ে সাত লাখ বর্গফুট। স্টল বাড়ছে ১০৪ ইউনিট। গত বছর যেখানে ছিল ৬১৯টি ইউনিট, এবার সেখানে হচ্ছে ৭২৩টি ইউনিট। প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহণও বাড়ছে ৪০টি। গত বছর ছিল ৩৭০টি প্রতিষ্ঠান, এবার হচ্ছে ৪১০টি। এর মধ্যে প্যাভিলিয়ন ২৩টির স্থলে এবার হচ্ছে ৩৪টি। শিশু চত্বরের আয়তনও বাড়ছে। শুধু বইয়ের মেলা হিসেবে এই মেলা আয়োজন হলেও এবার যুক্ত হচ্ছে ফুডকোর্ট। সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশের দুই প্রান্তে দুটি ফুডকোর্ট হচ্ছে। প্রতিটি ফুডকোর্টে ২০টি করে খাবার দোকান থাকবে।

বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণেও কিছুটা পরিবর্তন আনা হচ্ছে।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে এবারের বইমেলা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে উৎসর্গ করা হচ্ছে। অনুষ্ঠান মঞ্চের আলোচনার বিষয়ও হচ্ছে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে শুধু বাংলা একাডেমিই প্রকাশ করবে ১০০টি বই। মেলার উদ্বোধনী দিনে বাংলা একাডেমি থেকে বঙ্গবন্ধুর তৃতীয় গ্রন্থ ‘আমার দেখা নয়া চীন’ প্রকাশিত হবে। মোড়ক উন্মোচন করবেন বঙ্গবন্ধুকন্যা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বইমেলার সঙ্গে নান্দনিকতার ছোঁয়া আরো বাড়াতে এবার প্রথমবারের মতো স্থাপত্য ধারণা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে স্থাপনা ও ভবিষ্যতের বই-সংক্রান্ত আসবাব নিয়ে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য ও চারুকলার শিক্ষার্থীদের মধ্যে হবে এই প্রতিযোগিতা। শিক্ষার্থীদের ধারণাগুলো মেলায় প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা হবে।

এবারও বইমেলার নকশা ও সাজসজ্জার দায়িত্বে আছেন স্থপতি এনামুল করিম নির্ঝর। কালের কণ্ঠকে তিনি বলেন, ‘এবারের মেলা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের এক পাশে নয়, পার্কের মূল অংশজুড়ে হচ্ছে। ফলে পার্কের আবহটা ঠিক রেখে স্টল বিন্যাসটা যাতে চমৎকার, স্বাচ্ছন্দ্য ও নান্দনিক হয় সেদিকে নজর দেওয়া হচ্ছে।’

মেট্রো রেলের কাজের কারণে শাহবাগ থেকে দোয়েল চত্বর পর্যন্ত রাস্তা সংকুচিত হয়ে গেছে। এ কারণে মেলার বাংলা একাডেমি অংশ ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশের মধ্যে যে বিস্তৃত ফাঁকা জায়গা থাকত এবার তা পাওয়া যাবে না। মূলত এ কারণেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশের মেলার পরিসর বাড়ানো হয়েছে।

বাংলা একাডেমির পরিচালক এবং অমর একুশে গ্রন্থমেলার সদস্যসচিব ড. জালাল আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এবার যেহেতু মুজিববর্ষ, তাই বঙ্গবন্ধুকে গুরুত্ব দিয়ে এবারের মেলার আয়োজন হচ্ছে। সব দিক বিবেচনায় এবারের মেলা হবে এ যাবৎকালের বৃহৎ বইমেলা।’

তিনি আরো বলেন, ‘এবার মেলার প্রস্তুতি অনেক আগে শুরু করা হয়েছে। এরই মধ্যে আবেদনকারীদের স্টল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। স্টল নির্মাণও শুরু হয়ে গেছে। আগামী ১২ জানুয়ারি লটারির মাধ্যমে প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানগুলোকে স্টল বুঝিয়ে দেওয়া হবে। ফলে স্টল সজ্জার জন্য প্রকাশকরা পর্যাপ্ত সময় পাবেন।’

মাসব্যাপী অমর একুশে গ্রন্থমেলা শুরু হবে আগামী ১ ফেব্রুয়ারি। উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবার লিপিয়ার হওয়ায় মেলা চলবে এক দিন বেশি ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

সূত্র : কালের কণ্ঠ

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন

Check Also

নজরুলের পুত্রবধূ উমা কাজী আর নেই

বাংলাবাজার২১ : জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের বড় ছেলে কাজী সব্যসাচীর স্ত্রী উমা কাজী মারা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *